বিদায়ী অর্থবছরে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ১.৬৯ শতাংশ

২০১৬-১৭ বিদায়ী অর্থবছরে রপ্তানি আয় দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৪৮৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার। এর আগের অর্থবছরে যা ছিল ৩ হাজার ৪২৫ কোটি ৭১ লাখ ডলার। অর্থাৎ রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১ দশমিক ৬৯ শতাংশ। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩ হাজার ৭০০ কোটি ডলার।

আজ সোমবার কারওয়ান বাজারে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ইপিবির ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য।

দেশের পণ্য রপ্তানি আয়ের ৮০ শতাংশের বেশি তৈরি পোশাক খাত থেকে আসে। সদ্য বিদায়ী ২০১৬-১৭ অর্থবছরে পণ্যটি রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে মাত্র শূন্য দশমিক ২০ শতাংশ। গত ১৫ বছরের মধ্যে পোশাক রপ্তানি আয়ে এটিই সবচেয়ে কম প্রবৃদ্ধি। বিদায়ী অর্থবছরে ২ হাজার ৮১৫ কোটি মার্কিন ডলারের পোশাক রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ। তার আগের ২০১৫-১৬ অর্থবছর ২ হাজার ৮০৯ কোটি ডলারের পোশাক রপ্তানি হয়েছিল। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে পোশাক রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি ছিল ১০ দশমিক ১৪ শতাংশ।

বিদায়ী অর্থবছরে ১ হাজার ৪৩৯ কোটি ডলারের ওভেন পোশাক ও ১ হাজার ৩৭৫ কোটি ডলারের নিট পোশাক রপ্তানি হয়েছে। আগের অর্থবছরের তুলনায় নিট পোশাক রপ্তানি ৩ শতাংশ বাড়লেও ওভেন পোশাক রপ্তানি ২ দশমিক ৩৫ শতাংশ কমেছে। এ বছরে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যে রপ্তানি আয় হয়েছে ১২৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার, আগের অর্থবছরের তুলনায় রপ্তানি বেড়েছে ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। চামড়াবিহীন জুতায় রপ্তানি আয় এসেছে ২৪ কোটি ডলার, প্রবৃদ্ধি ৯ দশমিক ৯০ শতাংশ। হোম টেক্সটাইল খাতে আগের অর্থবছরের চেয়ে রপ্তানি বেড়েছে ৬ দশমিক ১৬ শতাংশ।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Translate »