fsadgvsb

‘ধাক্কা সামলাতে পর্যাপ্ত নগদ আছে কাতারের’

যেকোনো ধরনের ধাক্কা সামলাতে আমাদের পর্যাপ্ত নগদ অর্থ আছে—এভাবেই প্রতিবেশী চার দেশের নিষেধাজ্ঞা মোকাবিলায় কাতারে সক্ষমতার কথা জানিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর শেখ আবদুল্লাহ বিন সাউদ আল থানি। গতকাল রোববার গণমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, সরকারি বিনিয়োগ তহবিলসহ কাতারের রিজার্ভ এখন ৩৪ হাজার কোটি ডলার। তাই প্রতিবেশীদের সঙ্গে বিচ্ছিন্নতা বজায় থাকলেও সংকট কাটাতে পারবে কাতার।

আবদুল্লাহ বিন সাউদ আল থানি বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে চার হাজার কোটি ডলার রিজার্ভের পাশাপাশি সোনার মজুতও রয়েছে। এ ছাড়া কাতারের বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষের কাছে আছে আরও ৩০ হাজার কোটি ডলারের রিজার্ভ। তিনি বলেন, ‘কাতারে খুবই ভালো এবং অনন্য একটি ব্যবস্থা চালু আছে। সব ধরনের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমাদের কার্যকর আইন আছে।…আমাদের আইন নিরীক্ষা, পর্যালোচনা ও প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলসহ অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে কাজ করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছি না। যাঁরা আমাদের হিসাব পর্যালোচনা করতে চাইছেন, তাঁদের আমরা স্বাগত জানাই।’

প্রতিবেশীদের নিষেধাজ্ঞায় কাতারের দীর্ঘমেয়াদি তেল-গ্যাস খাতের চুক্তিগুলোতে কোনো প্রভাব পড়েনি বলেও দাবি করেন কেন্দ্রীয় ব্যাংক গভর্নর।

সন্ত্রাসবাদ ও কট্টরপন্থায় মদদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), বাহরাইন ও মিসর গত ৫ জুন কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করে। তাদের অভিযোগ, আরব দেশগুলোর আঞ্চলিক শত্রু ইরানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাতার কট্টরপন্থায় মদদ দিচ্ছে। কাতারের সরকার বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এই দেশগুলো কাতারের সরকার-নিয়ন্ত্রিত আল-জাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা, ইরানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা কমিয়ে দেওয়াসহ ১৩ দফা দাবি পাঠায় দোহার কাছে। দুই দফায় শর্ত পূরণের সময়সীমা বেঁধে দিলেও কাতার তা মানেনি। এরপর সম্প্রতি কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার সিদ্ধান্তই নেয় সৌদি আরবসহ চার দেশ।

সূত্র: রয়টার্স

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Translate »